Notice: Undefined index: status in /home/dailynew7/public_html/exclusiveadhirath.com/wp-content/plugins/easy-facebook-likebox/easy-facebook-likebox.php on line 69

Warning: Use of undefined constant REQUEST_URI - assumed 'REQUEST_URI' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/dailynew7/public_html/exclusiveadhirath.com/wp-content/themes/herald/functions.php on line 73
ওয়াও মোমোর সালতামামি - Exclusive Adhirath
Edu-Tech-Trade

ওয়াও মোমোর সালতামামি

চিত্র ঋণ – ওয়াও মোমো’র ফেসবুক পেজ

লিখেছেন দেবাদিত্য মুখার্জী

“You will never go hungry when wow! branch is nearby!” হুম, সত্যিই তাই! চিন্তাটা কোথায়? খিদের মুখে স্বাদবদলের বার্গার, টিবেটিয়ান ফুড, ভেরি ভেরি স্পেশাল ‘মোমো’ কি নেই? বলা হচ্ছে এই ভারতবর্ষে যে সমস্ত ব্যবসা অতি দ্রুত গতিতে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে তাদের মধ্যে ‘ওয়াও মোমো’ বর্তমানে অন্যতম প্রধান সদস্য। ভারতের, সবচেয়ে বেশি দ্রুতগামী, লাভজনক Q.F.R. (ক্যুইক সার্ভিস রেস্টুরেন্ট)। দিল্লি, মুম্বাই, কোচি, চেন্নাই, ভুবনেশ্বর, ভারতের প্রায় সব জায়গাতে দেখা পেয়েই যাবেন আপনার প্রিয় ‘ওয়াও মোমো’কে।

তবে শুরুটা অবশ্যই কলকাতায়। কলকাতার সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজের দুই প্রাক্তন ছাত্র সাগর দারিয়ানী এবং বিনোদ হোমগাই করেন শুরুটা। টালিগঞ্জের গাছতলা এলাকায় ২০০৮ সালে স্পিংডেল স্পেন্সার্সের ৬/৬ মাপের একটা ছোট্ট ঘর থেকে শুরু হয় স্বপ্নের উড়ান। প্রথম মাসেই সেই ব্যবসায় সাড়া পাওয়া যায় দারুন। ২০১০ সালে কলকাতার বৃহত্তম ফ্যাশন হাব ‘বিগ বাজার’ এর সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয় “ওয়াও মোমো”। তারা খুলে ফেলে নিজেদের দশম আউটলেট। তারপর আর দুই বন্ধুকে পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০১১ অর্থাৎ এর ঠিক পরের বছরেই ‘ওয়াও মোমো’র ঠিকানা হয় জন্মভূমির বাইরে, বেঙ্গালুরু ( ফিনিক্স মার্কেট সিটি মল)। ঠিক একই ভাবে ২০১২ সালে ফিনিক্স সিটি মল, পুনে এবং ২০১৩ সালে ফিনিক্স মার্কেট সিটি মল, চেন্নাই ;  L.U.L.U মল, কোচি নতুন ঠিকানা হয় “ওয়াও” এর।

জনপ্রিয়তার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে আউটলেট সংখ্যাও। ২০১৪ সালে ৩৩ টি আউটলেটের সঙ্গে বার্ষিক ১০০ মিলিয়ন ডলারের টার্ন ওভারে পৌঁছায় এই ব্যবসাটি।এরপর ২০১৭ সালে নিজেদের ১০০ তম আউটলেট খোলা হয় বেঙ্গালুরু, মুম্বই, ভুবনেশ্বরে। এর পর ফের ওয়াও মোমো ফিরে আসে কলকাতায়। ১৫০ তম আউটলেটের ঠিকানা হয় পার্ক স্ট্রিট, তার সঙ্গে থাকে নিজেদের নতুন সাব ব্র্যান্ড “Wok Is Wow”

ওয়াও মোমোর এই যাত্রা পথ আসলে অনেকটা রূপকথার গল্পের মতো। গত বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে, ‘ওয়াও’ চালু করেছে, নিজেদেরই ইনহাউস পানীয় ‘Thunderzz’!
‘ফ্যাব ইন্ডিয়ার’ ম্যানেজিং ডিরেক্টর উইলিয়াম বিসেল ৩ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেন এই ব্যবসায় এবং যোগদান করেন উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য হিসাবে ।
শুধুমাত্র স্টিমড মোমোর গণ্ডি ছাড়িয়ে , বেকড মোমো, তন্দুরি মোমো, মোমো বার্গার , চকলেট মোমো, কী নেই তাদের মেনু লিস্টিতে! আর আছে বিশেষ ম্যাঙ্গো মোমো।একসঙ্গে মোমো আর আম এর স্বাদ, আহা! এমনকি থাকছে, বাঙালির প্রিয় পোস্ত, তবে অবশ্যই মোমোতে। আরও কতো কি? তবে আর দেরি কেনো।
মোমো হয়ত আপনার জন্যই অপেক্ষায় আছে আপনার নিকটবর্তী কোনও ‘ওয়াও’ আউটলেটে।

Promotion