EXCLUSIVE NEWS

গোলাপের বদলে লাইব্রেরি নির্মাণের ইট, ভালবাসার হাটে অদ্ভুত ভ্যালেন্টাইন দিবস পালন করল বারুইপুর

 

ভালোবাসার দিন বা ভ্যালেন্টাইন্স ডে’কে এক ব্যতিক্রমী ভাবনার আঙ্গিকে পালন করল বারুইপুর এলাকার নড়িদানা স্বপ্নসন্ধান। এই সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান গত তিন বছর ধরে ‘ভালোবাসার হাট’ আয়োজন করছে।  ভালোবাসার হাটের মূল ভাবনা সমাজের এক অংশের মানুষের কাছে যা উদ্বৃত্ত, অপ্রয়োজনীয় তা সমাজের অন্য অংশের মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া। এই ভাবনায় ভাবিত হয়ে স্বপ্নসন্ধানী ও স্বপ্নসেনারা বিভিন্ন জায়গা থেকে ব্যবহার উপযোগী জামাকাপড়, কম্বল, চাদর, সোয়েটার, বই-খাতা, খেলনা, কলম ইত্যাদি সংগ্রহ করেন। এসব নিয়েই ১৬ ফেব্রুয়ারি, রবিবার বসলো ভালোবাসার হাট। এক্কেবারে বিনে পয়সার বাজার। কোনও ক্রেতা-বিক্রেতা নেই। নেই টাকা পয়সার লেনদেনের ঝক্কি! আছে শুধুই অফুরান ভালোবাসা। এমনই ভালোবাসার দেওয়া-নেওয়ায় জমে উঠলো সেই হাট। চারিদিকে শুধুই ছিল ভালোবাসার হাত।

 


ভালোবাসার হাটে এ বছর একটি নতুন বিষয়ও ছিল। গোলাপের বদলে স্বপ্ননির্মাণে স্বপ্নসন্ধান লাইব্রেরি নির্মাণের জন্য এক গোলাপের বিনিময়ে একটি ইট সাথে অনেক ভালোবাসা। একটি গোলাপের প্রতিদানে ১০ টাকা ধরে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছিলো ভালোবাসার বার্তা। ভার্চুয়াল জগতে আলোড়িত এই গোলাপের সহযোগ বার্তা এসেছে দেশের বাইরে লন্ডন-টরেন্টো থেকেও। ফেসবুকের কল্পজগৎ এভাবেই মিশে গিয়েছিল ভালোবাসার বাস্তবতায়। সব শেষে ছিলো এক সঙ্গে পাত পেড়ে খিচুড়ি খাওয়া। ব্যক্তিগত প্রেমকে সমষ্টির জন্য, সমাজের প্রসারিত যে উদ্যোগ স্বপ্নসন্ধান নিয়েছে তাকে কুর্নিশ জানিয়েছেন অসংখ্য মানুষ। এই অভাবনীয় সাড়ায় আপ্লুত স্বপ্নসন্ধানের সম্পাদক সুমিত মন্ডল সকলকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, “সামাজিক পরিবর্তনের লড়াইয়ে ভালোবাসার হাট যদি সামান্যতম ছাপ রাখতে পারে, তাহলে তা হবে এক পরম প্রাপ্তি।”

 

 

Promotion