মরসুমী ফুল

মানবিকতার খাতিরে সরস্বতী পুজো করেছিলেন খোদ সৈয়দ মুজতবা আলী!

 

সেদিন ছিল সরস্বতী পুজোর এক সকাল। সৈয়দ মুজতবা আলী গঙ্গার ঘাটে। বেলা প্রায় বারোটা বেজে গিয়েছে। গৌরবর্ণ, সৌম্যকান্তি আলী সাহেবের কাছে হঠাৎ হাজির এক বৃদ্ধা। একা নন অবশ্য, সঙ্গে তাঁর ছোট্ট নাতনী। বৃদ্ধা আলী সাহেবকে অত্যন্ত অনুনয় করে বললেন, “বাবা, আমার বাড়ির পুজোটা করে দাও, পুরোহিত এখনও আসেনি।  আমি পুরোহিত খুঁজতে বেরিয়েছি. বাচ্চাটা না খেয়ে অঞ্জলি দেবে বলে বসে আছে। সৈয়দ মুজতবা আলী পড়লেন মহা বিড়ম্বনায়।

 

অবশেষে বৃদ্ধার অনুরোধ এবং বিশেষ করে বাচ্চা মেয়েটির মুখের দিকে তাকিয়ে রাজি হলেন আলী সাহেব। বৃদ্ধার বাড়িতে বিশুদ্ধ সংস্কৃত মন্ত্রোচ্চারণে, পুজা-পদ্ধতি মেনে আলী সাহেব সরস্বতী পুজো করলেন। বাড়ির লোকজন খুব খুশি। দক্ষিণা নিয়ে আলী সাহেব বিদায় নিলেন। পরবর্তী কালে স্বীকারোক্তিতে তিনি বলেছেন, “জানিনা মা সরস্বতী এই বিধর্মীর পুজোয় অসন্তুষ্ট হলেন কিনা? তবে আশা করি তিনি উপোসী বাচ্চাটির শুকনো মুখের দিকে চেয়ে এই অধমকে ক্ষমা করবেন।

Promotion