Notice: Undefined index: status in /home/dailynew7/public_html/exclusiveadhirath.com/wp-content/plugins/easy-facebook-likebox/easy-facebook-likebox.php on line 69

Warning: Use of undefined constant REQUEST_URI - assumed 'REQUEST_URI' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/dailynew7/public_html/exclusiveadhirath.com/wp-content/themes/herald/functions.php on line 73
শিল্পী - এক মেঘে ঢাকা সঙ্গীত-নক্ষত্র - Exclusive Adhirath
মেঘে ঢাকা তারা

শিল্পী – এক মেঘে ঢাকা সঙ্গীত-নক্ষত্র

গানের পথে যাত্রা কিভাবে শুরু? আপনার গুরুই বা কারা ছিলেন?
আমি সাড়ে তিন বছর বয়স থেকে গান শিখতে শুরু করি আমার মায়ের কাছে। প্রসঙ্গক্রমে বলি, আমার মা খুব ভালো গান করেন। আমার বাবা অসাধারণ তবলা বাজান। উনি স্বপন চৌধুরীর শিষ্য ছিলেন। তাদের তত্ত্বাবধানেই আমার সঙ্গীত শিক্ষা শুরু হয়। পরবর্তী কালে আমি অশোক ব্যানার্জি, কল্যাণ চক্রবর্তী, পন্ডিত জয়ন্ত সরকার,  রাজকুমার রায়, সুরজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে শিখেছি। আমার আধুনিক গান, লোকসঙ্গীত, সেমি-ক্লাসিক্যাল সবটাই রাজকুমার দার কাছে শেখা। ওনার কাছে গান শিখতে এসে আমার মনে হয়েছিল, আমি শাস্ত্রীয় সঙ্গীত ছাড়াও এগুলিও গাইতে পারি।

একজন সফল গায়িকা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য কি প্রতিভাটুকুই যথেষ্ট?
উ: আমি মনে করি প্রতিভা থাকলে তা নিশ্চয়ই সকলের সামনে একদিন আসবে। প্রতিভা কখনও চেপে রাখা যায় না।

এখনও পর্যন্ত কি কি উল্লেখযোগ্য কাজ করেছেন?

আমি পাঁচ বছর বয়স থেকে আকাশবাণীতে গান গাই। রাজ্য সঙ্গীত একাডেমীতে সঙ্গীতের কর্মশালা করেছি। সেই প্রতিযোগিতাতেও পুরস্কার পেয়েছি। বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে অনুষ্ঠান করেছি, এফএম রেডিওতে অনুষ্ঠান করেছি। নিজের লোকসঙ্গীতের প্রথম অ্যালবাম বেরিয়েছে ২০১৫ সালে, যার নাম ‘পিয়ে নে চা’। অ্যালবামটি রাজকুমারদা আর আমার যুগ্ম অ্যালবাম। বেশ কিছু সরকারি প্রতিযোগিতার বিচারক হিসেবে গিয়েছি। সঙ্গীত মেলা ও বিভিন্ন সরকারি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছি।

 

স্বপ্ননগরী মুম্বই যাওয়ার ইচ্ছা কি রয়েছে?

অবশ্যই। কোন ভালো কাজ পেলে নিশ্চয়ই যাব।

আগামী কোন কোন কাজ মুক্তির অপেক্ষায় প্রহর গুনছে?

বেশ কিছু রেকর্ডিংয়ের কাজ চলছে। সেগুলো এই মুহুর্তে বলতে চাইছি না। মুক্তি পেলেই জানতে পারবেন।

লোকসঙ্গীতে আমরা বারবার ‘বাউল’ শব্দটি শুনি। এটি কি আসলে একটি ধারণা?

বাউল একটি জীবনদর্শন। এই জীবনদর্শন যারা অনুসরণ করে চলেন তারাই বাউল সম্প্রদায়।

রিয়্যালিটি শো শিল্পী তৈরি করে নাকি তারকা তৈরি করে?

অবশ্যই তারকা তৈরি করে এবং শিল্পীর শৈল্পিক সত্ত্বাকে কিছুটা হলেও নষ্ট করে।

নির্দিষ্ট টিভি চ্যানেলের ট্যাগলাইন না থাকলে কি শিল্পীদের বৈষম্যের শিকার হতে হচ্ছে?

অবশ্যই, কিন্তু তা বেশি দিন স্থায়ী হয় না।প্রতিভা থাকলে তা ঠিকই মানুষের কানে ধরা দেয়, তা নির্দিষ্ট চ্যানেলের ট্যাগ থাক বা নাই থাক।

 সফটওয়্যারের প্রতি অতিরিক্ত নির্ভরতা কি কানের ক্ষতি করছে?

অবশ্যই করছে। কারণ আগেকার দিনে পিচ কারেকশন হতো না, ফলে গান অনেক বেশি পারফেক্ট হতো সফটওয়্যার ছাড়াই। আগে মানুষের গান শেখার প্রবণতা বেশি ছিল। এখন এমনও হয় যে রেকর্ডিং ভার্সন এক শুনলাম আর লাইভ অন্যরকম হল। এর ফলে গানে নিজস্বতা কোথাও গিয়ে হারিয়ে যাচ্ছে।

 ফোকের সাথে ফিউশন শব্দটি এখন খুব শোনা যাচ্ছে । এ ব্যাপারে আপনার প্রতিক্রিয়া কি?

মূল গানকে ঠিক রেখে ফিউশন করার অসুবিধা কি? ফিউশনের ফলে এখন লোকসঙ্গীত অনেক বেশি সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছচ্ছে।

কোন কোন লোকসঙ্গীত শিল্পীর জীবনবোধ আপনাকে প্রভাবিত করে?

প্রসঙ্গক্রমে বলি আমার বড় মামা শ্রী দিলীপ বন্দ্যোপাধ্যায় একজন বড় মাপের বাউল ছিলেন। যিনি ইন্দিরা গান্ধীর কাছ থেকে ‘বাউল ভাব সম্রাট’ উপাধি পেয়েছিলেন।  তার জীবনবোধও আমাকে প্রভাবিত করেছিল। তিনি একতারা নিয়ে বাউলের পোশাকে গান গাইতেন।

আরেকজনের জীবনবোধ আমাকে ভীষণভাবে প্রভাবিত করে, তিনি হলেন রাজকুমার রায়। যার কাছে গান শিখতে না গেলে আমি লোকসঙ্গীত গাওয়ার কথা ভাবতেও পারতাম না। উনিই আমাকে লোকসঙ্গীত শেখান। রাজকুমার দা অসাধারণ মাপের এক মানুষ, ওনার থেকে অনেক কিছু শিখেছি।

গানকে ঘিরে আপনার কোনও ভালো বা খারাপ অভিজ্ঞতা।

একটি অনুষ্ঠানে পারফর্ম করার পর পারিশ্রমিক না দিয়েই আয়োজকরা চলে যান। অবশ্যই সেটি খারাপ অভিজ্ঞতা। আর ভালো অভিজ্ঞতা অনেক রয়েছে। যখন অনুষ্ঠানের পর প্রশংসা শুনি, ভালো লাগে। আমি সবাইকেই বলি,আমার গানের ভালোটা তো বলবেনই, কিন্তু খারাপ লাগলে সেটি আরও বেশি করে বলুন।

লোকসঙ্গীত গাইতে গেলে কি শাস্ত্রীয় সঙ্গীত শেখার দরকার রয়েছে?

আমি মনে করি যে কোনও সঙ্গীত গাওয়ার জন্য যথাযথ ভোকাল ট্রেনিং এবং শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের বেসিক ধারণা থাকা জরুরী।

সঙ্গীতকে ঘিরে আপনার স্বপ্ন কী?

আজ থেকে দশ বছর পর নিজেকে দেশের এক নম্বর সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে দেখতে চাই। আরও অনেক ভালো গান গাইতে চাই।

 

 

Promotion