EXCLUSIVE NEWS

প্রকৃতি মা-কে দূষণমুক্ত করতে গর্জে ওঠা ঝাড়গ্রাম নামলো রাস্তায়

গত রবিবার (২৪শে ফেব্রুয়ারি) পরিবেশ রক্ষার অঙ্গীকার নিয়ে ঝাড়গ্রামের রবীন্দ্র পার্ক থেকে জিতুশোল ১২ কিমি দীর্ঘ পদযাত্রা হয়ে গেল। যোগ দিলেন ঝাড়গ্রাম জেলার সর্বস্তরের শতাধিক মানুষজন। ঝাড়গ্রাম শহর ছাড়াও এই পদযাত্রায় পা মেলালেন গিধনী, বেলপাহাড়ী, লালগড়, মেদিনীপুর, লোধাশুলি ইত্যাদি জায়গা থেকে আগত ছাত্র-ছাত্রী থেকে শুরু করে শিক্ষক-অভিভাবকরা। এমনকি কল্যাণী, কলকাতা থেকেও পরিবেশকর্মীরা যোগ দিয়েছিলেন।


শেষ ১০-১২ বছরে যে হারে ঝাড়গ্রামে বিভিন্ন কারণে গাছ কাটা হয়েছে, তাতে আতঙ্কিত পরিবেশকর্মী থেকে সাধারণ মানুষ। স্বাস্থ্যকর জায়গা হিসেবে খ্যাত ‘অরণ্য সুন্দরী’ আজ তার গরিমা হারাতে চলেছে। সদ্য গঠিত ‘ঝাড়গ্রাম নাগরিক উদ্যোগ’ এক বছর ধরে গাছ বাঁচানোর দাবীতে নানান কর্মসূচি নিয়ে আসছে। গত বছরের ২২ জুন ‘নাগরিক কনভেনশন’-এ শাল গাছ রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের প্রস্তাব গৃহীত হয়। এর পরে ডিএমের দপ্তরে ডেপুটেশন, গাছে রাখি বেঁধে রাখিবন্ধন উৎসব পালন ইত্যাদি করা হয়।


৬ নম্বর জাতীয় সড়ক সম্প্রসারণ, রেলের তৃতীয় লাইন তৈরি, স্টেডিয়াম সম্প্রসারণ, নার্সিং স্কুল নির্মাণ, এসপি-এএসপি বাংলো নির্মাণ, পুলিশ লাইন নির্মাণের কারণে কয়েক হাজার শাল সহ অন্যান্য গাছ ইতিমধ্যেই কাটা পড়েছে। যদিও পরিবেশপ্রেমীদের আন্দোলনের চাপে বেশ কিছু পরিকল্পনা পাল্টাতে বাধ্য হয়েছে প্রশাসন। অতিরিক্ত জেলাশাসকও গাছ বাঁচিয়ে যে কোনো প্রকল্প নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন আন্দোলনকারীদের। গাছ বাঁচানোর পাশাপাশি ডিজে-এয়ারহর্ণ বন্ধ, বন্যপ্রাণ রক্ষা, প্লাস্টিক-থার্মোকল-ফ্লেক্স নিষিদ্ধ, স্পঞ্জ আয়রণ এবং সিমেন্ট কারখানার দূষণ ‘কঠোর ভাবে নিয়ন্ত্রণ’-এর দাবীও ছিল এই পদযাত্রার। ধামসা, মাদল, একতারা ও গীটার সহযোগে বিভিন্ন গানে, কবিতায়, স্লোগানে মুখর ছিল এই পদযাত্রা। ঝাড়গ্রাম থেকে ১০কিমি দূরে গড়শালবনীতে স্থানীয় শিরষি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুরা নৃত্য পরিবেশনের পাশাপাশি তাদের শিক্ষকের রচিত নাটক ‘দূষণ’ মঞ্চস্থ করে। তাদের সঙ্গেই উপস্থিত সবাই শপথ নেন দূষণমুমক্ত পরিবেশ গঠনের।


জিতুশোলের বাসস্ট্যান্ডে পদযাত্রার সমাপ্তি ঘটে। যদিও ২০০মিটার দূরে স্পঞ্জ আয়রন কারখানার গেটে শ’খানেক সশস্ত্র পুলিশের উপস্থিতি অবাক করেছে উদ্যোক্তাদের। প্রয়াত পরিবেশকর্মী বিজন ষড়ঙ্গীর স্ত্রী অপরাজিতা ষড়ঙ্গীও ছিলেন এই পদযাত্রায়। ‘ঝাড়গ্রাম নাগরিক উদ্যোগ”-এর আহ্বায়ক শ্রীমন্ত রাউৎ জানান “আগামী প্রজন্মের শিশুদের সুস্থ ও দূষণমুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত না করা পর্যন্ত আন্দোলন চলবে”।

 

Promotion