Notice: Undefined index: status in /home/dailynew7/public_html/exclusiveadhirath.com/wp-content/plugins/easy-facebook-likebox/easy-facebook-likebox.php on line 69

Warning: Use of undefined constant REQUEST_URI - assumed 'REQUEST_URI' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/dailynew7/public_html/exclusiveadhirath.com/wp-content/themes/herald/functions.php on line 73
এই মন্দিরের দেবতা ভোগে খান হুইস্কি এবং ওয়াইন - Exclusive Adhirath
জগতের বাহার

এই মন্দিরের দেবতা ভোগে খান হুইস্কি এবং ওয়াইন

বাতাসা, নকুলদানা, প্যাঁড়া বা সন্দেশ নয়। এমনকি খিচুড়ি বা খাজাও নয়। মধ্যপ্রদেশের উজ্জ্বয়িনীর কাল-ভৈরব মন্দিরে দেবতার ভোগ হল হুইস্কি এবং ওয়াইন। তাই এই মন্দির স্থানীয়দের কাছে পরিচিত হুইস্কি দেবতার মন্দির নামে।

অত্যন্ত জাগ্রত এই মন্দিরটি শিপ্রা নদীর ধারে দাঁড়িয়ে রয়েছে। ইতিহাসে কথিত রয়েছে রাজা ভদ্রসেন এই মন্দির তৈরি করেন। তাছাড়া সুপ্রাচীন স্কন্দ পুরাণের অবন্তী খণ্ডে এই কাল ভৈরবের আরাধনার কথা রয়েছে। প্রাচীন এই মন্দিরটি কবে তৈরি করা হয়েছিল তা নিয়ে নিশ্চিত কোন তথ্য না থাকলেও বর্তমান মন্দিরটি ৯ থেকে ১৩ শতকের মধ্যেই তৈরি হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বলা হয়ে থাকে, প্রাচীন কালে তন্ত্র সাধকরা এই মন্দিরে অর্চনা করতেন মদ, মাংস, মাছ, মুদ্রা ও মৈথুন দিয়ে।

মন্দিরের দিকে এগিয়ে যেতেই দেখা যাবে সারি সারি দোকান । সেখানে প্রকাশ্যে বিদেশের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের হুইস্কি, রাম ও ওয়াইন বিক্রি হচ্ছে । ভক্তরা পুজো দিতে আসলে এখান থেকেই মদ কেনেন। তাদের পুজোর ডালায় ফুল, নারকেলের সঙ্গেই থাকে এক বোতল হুইস্কি অথবা রাম। পুরোহিতকে আস্ত বোতলটাই দেওয়া হয় ভোগ হিসাবে দেওয়ার জন্য। একটা থালায় বেশ খানিকটা ঢেলে নেন তিনি। তারপর সেই হুইস্কি, রাম বা ওয়াইন দেবতার মুখে ছুঁয়ে দিয়ে পুজো করেন।

তবে সবথেকে তাজ্জব হওয়ার মতো ঘটনার কথা জানা গেল এক প্রত্যক্ষদর্শীর বয়ানে। তার বক্তব্য অনুযায়ী অনুযায়ী, শিবের সামনে প্লেটে মদ সাজিয়ে দেওয়া হয় । সেই মদ নাকি কিছুক্ষণের মধ্যে উবে যায় ।  কেউ জানতে পারে না কয়েকশো লিটার মদ রোজ কীভাবে শেষ হয়ে যাচ্ছে। যুগ যুগ ধরে এটাই হয়ে আসছে। যদিও এই ঘটনার কোনও বিজ্ঞানসম্মত ব্যাখ্যা এখনও কেউ দিতে পারেন নি।