EXCLUSIVE NEWS

বিজেপি কার্যালয়ের দেওয়ালে ‘ধর্ষক’ লেখা হলো! তার ‘জবাবেই’ কি মাঝরাতে গুন্ডা আক্রমণের মুখে যাদবপুরের পড়ুয়ারা?

 

দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া এবং অধ্যাপকদের নির্মম আক্রমণের অভিযোগে বিদ্ধ অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ। এই ঘটনার প্রতিবাদে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু সাধারণ ছাত্রছাত্রী রবিবার রাতে একটি মিছিলের ডাক দেন। যাদবপুরের সুলেখা মোড়ে অবস্থিত বিজেপির পার্টি অফিসের দেওয়ালে খুনি-ধর্ষক -রেপিস্ট লেখা হয়। ছাত্রছাত্রীদের অভিযোগ মিছিল করে একসঙ্গে নৈশভোজ সেরে বাড়ি ফেরার পথে আক্রান্ত হন। ফাঁকা রাস্তার সুযোগ নিয়ে বিজেপির গুন্ডারা তাদের ঘিরে ধরে বলেই তাদের অভিযোগ। একটি লাইভ ভিডিওতে পুলিশের নিষ্ক্রিয় ভূমিকাও চোখে পড়ে। অবশেষে মূলতঃ ছাত্রীরাই লাঠি নিয়ে স্লোগান মুখে গুন্ডাদের দিকে তেড়ে যান। তাদের সম্মিলিত প্রতিরোধে পালায় গুন্ডারা। অনেকেই মনে করছেন বিজেপির পার্টি অফিসের দেওয়ালে ‘ধর্ষক’ লেখার শোধ তুলেছে গেরুয়া শিবির।

 

অন্যদিকে ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার সভাপতি দেবজিৎ সরকার ইতিমধ্যেই ঘটনার প্রতিক্রিয়া জানালেন। তিনি যদিও একেবারেই এই গুন্ডা হামলার সঙ্গে বিজেপি যোগের তত্ত্ব উড়িয়ে দিয়েছেন। বরং তিনি বলেন, ওই দেওয়াল লেখার বিষয়টি চাপা দেওয়ার জন্যই ‘ভিক্টিম প্লে’ করছেন পড়ুয়ারা। তার ভাষায়, “পড়ুয়াদের দ্বারা ঘটানো এরকম ঘটনার নিন্দা কাল রাত থেকেই হচ্ছে। ওনারা বলছেন জেএনইউ’তে বিদ্যার্থী পরিষদ মুখোশ পরে হামলা চালিয়েছে। প্রথমতঃ আমি বিদ্যার্থী পরিষদের প্রাক্তনী হিসেবে জানতে চাই, মুখ ঢাকা দেখে ওরা চিনছে কী করে? তাছাড়া বিদ্যার্থী পরিষদের সঙ্গে বিজেপির সরাসরি যোগ নেই। বিদ্যার্থী পরিষদ যদি হামলা চালিয়েও থাকে, তাহলেও কি বিজেপির পার্টি অফিসের দেওয়ালে এরকম কথা লেখা যায়? অকুতোভয় বিপ্লবীদের যাদবপুরে বিপ্লবের লীলাভূমিতে গুন্ডারা তাড়া করছে এটি কেরকম একটা শুনতে লাগছে না? বিপ্লব স্পন্দিত বক্ষে প্রত্যেকে লেনিন হয়ে রাতের অন্ধকারে একজন বিজেপি কর্মীর বাড়িতে(ওই বাড়িটিকেই বিজেপি কার্যালয় হিসেবে ব্যবহার করা হয়) ‘রেপিস্ট’ লিখছিলেন। ওই কর্মীকে গালাগাল সহকারেই কাজটি করা হয়।” ইতিমধ্যেই অভিযোগ কিংবা পাল্টা অভিযোগের পালা চলছে। ফলে ভরা শীতেও গোটা দেশের পাশাপাশি সরগরম রাজ্য-রাজনীতি।

 

Promotion