কলমের শক্তি

ধ্যান-ভঙ্গ

স্বচ্ছ চশমার ফ্রেম গলে তাকিয়েছিলে আকাশের পানে;

ভ্রু কুঁচকে অপলক দৃষ্টিতে

শুভ্র দন্তের গোলাপী ওষ্ঠের ভাঁজে।

 

মিষ্টি দুষ্টু প্রাণখোলা হাসি নিয়ে

অপেক্ষার প্রহর গুনে পথিক-

 

ক্লান্ত এক মেঘ জমে আছে

দেবী স্বরস্বতীর শাড়ির আঁচলে গোলাপী পারে’র সোনালী

আলপনায়।।।

 

পাগল করা এই হাসিতে

ক্ষণিকেই ধ্যান ভাঙ্গে ব

জ্রাসনে বসে থাকা হরিণ

শাবকের।

 

আরোও কত সন্ন্যাসীর ধ্যান

ভাঙতে চাস বলবি আমায়?

 

তিলে তিলে গড়ে তোলা সৌন্দর্য্যের

তিলোত্তমা তুই।

তোর থেকে চোখ ফেরায়

সাধ্যি কার; কোন মহাপুরুষের?