Notice: Undefined index: status in /home/dailynew7/public_html/exclusiveadhirath.com/wp-content/plugins/easy-facebook-likebox/easy-facebook-likebox.php on line 69

Warning: Use of undefined constant REQUEST_URI - assumed 'REQUEST_URI' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/dailynew7/public_html/exclusiveadhirath.com/wp-content/themes/herald/functions.php on line 73
পূজো আসলে ঘোচায় সব দূরত্ব - Exclusive Adhirath
দুই বাংলার পুজো পরিক্রমা ২০১৮

পূজো আসলে ঘোচায় সব দূরত্ব

ছবি – সংগৃহীত

এই মুহূর্তে আমাদের দেশে চলছে বিভাজনের খেলা। ধর্মের নামে, জাতপাতের নামে, বিত্তের নামে আমাদের ভাগ করা হচ্ছে রাজনৈতিক স্বার্থে। কারণ রাষ্ট্রশক্তি কখনোই চায় না মানুষ একজোট হয়ে নিজের কথা বলুক। মূল চাহিদার জন্য তার গলা সোচ্চার করুক একসঙ্গে। তাই খুব সুপরিকল্পিতভাবেই মানুষের মধ্যে তৈরি করা হচ্ছে দূরত্ব। এ দুরত্ব অস্তিত্বের, এ দুরত্ব সংকল্পের, এ দূরত্ব সামাজিক বা অর্থনৈতিক। এ দুরত্ব হল মননের চিন্তাভাবনার। এই দূরত্ব একে অন্যের উৎসবে নিজেকে সামিল করতে না পারা। ভিন্ন ধর্মের মানুষকে সন্দেহের চোখে দেখা, যা আমাদের চিরন্তনী ঐতিহ্যের মূলে করছে কুঠারাঘাত। অন্যদিকে আর্থ-সামাজিক দিক দিয়ে এক শ্রেণী হয়ে চলেছে শক্তিশালী, আর আমাদের মতো খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ হচ্ছি দুর্বলতম। তাই বোধহয় আমরা বলতে পারি,

আমাদের মাঝে মাপনীর দূরত্ব এক ইঞ্চির
কিন্তু অর্থ সরিয়ে রেখেছে একশ মাইল
তোমার জামার রঙের চিক্কণ
আমার জামার দাগে নিকেল।

এভাবেই সমাজের সব স্তরের মানুষেরা আলাদা থাকেন সারা বছর। সমস্ত রকম দূরত্ব তাদের করে রাখে আলাদা। কিন্তু শক্তিসঞ্চারিণী মাতৃপ্রলয়ী আমাদের মনে এনে দেয় মিলনের প্রলেপ। সারা বছরের সব দূরত্ব মুছে মিশে যায় দুর্গাপূজো নামক মিলন উৎসবে। পারস্পরিক মান-অভিমান সব ভুলে নিজের মানুষরাও একসাথে উদযাপন করা শুরু করে । উৎসবের মাধুর্য্য পৌঁছায় সর্ব্বোচ্চ সীমায়। আর্থ-সামাজিক দূরত্ব হয়তো ঘোচেনা কিন্তু মানসিক দূরত্ব মিটে যায় এই উৎসবে। সব মানুষের মনেই যে আসলে থাকে ঘরে ফেরার টান।
বাঙালীদের কাছে উৎসব মানেই প্রেম। দুর্গাপূজো তাই প্রেম মিলনের আঙিনা। এই বিরাট যজ্ঞে অন্যধর্মের মানুষরাও যোগ দেয় ভেদাভেদ ভুলে। আমাদের মুসলিম ভাইদের দেখা যায় প্যান্ডেলে দড়ির বাঁধন শক্ত করতে। কলকাতার ইসলামিয়া সংঘের মতো পূজোয় মুসলিম ভাইয়েরা আয়োজকের ভূমিকা পালন করেন। এইভাবেই বোধহয় মৌলবাদ নামক অসুরদের কবল থেকে মা দেন মুক্তি। বাঙালী সৈন্যদের কিছু সময়ের জন্য হলেও ঘরে ফেরা হয় পরিবারের কাছে। কিছু প্রবাসী বাঙালীরা ফিরত আসে উৎসবের টানে। সব মিলিয়ে চতুর্দিকে বাজে মিলন উৎসবের ভায়োলিন। মনপ্রাণ জুড়ে আবেদন থাকে এই দিনগুলো যেন না শেষ হয়, দূরত্ব ঘোচার এই এপিসোডগুলি যেন হয়ে চলে To be Continued…

Promotion